‘Banker-ব্যাংকার’ গ্রুপ প্রতিষ্ঠার ইতিহাস

সোশ্যাল মিডিয়া তথা ফেসবুক বর্তমানে নলেজ শেয়ারিং বা জ্ঞান অর্জনের অন্যতম একটি প্লাটফর্মে পরিনত হয়েছে। ব্যাংকার কিংবা নন-ব্যাংকার (ব্যাংক গ্রাহক) তাদের ব্যাংকিং বিষয়ক বিভিন্ন ধরনের জ্ঞান একে অপরের সাথে ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করে থাকেন। অথবা ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে তাদের ব্যাংকিং বিষয়ক বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরে থাকেন। এতে অনেকেই তাদের সমস্যার সমাধান পেয়ে যান আবার কেউ কেউ কোন সমাধান পান না। এমনকি অনেকেই ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ থেকে ব্যাংকিং বিষয়ক শিক্ষা নিয়ে নিজেদের জ্ঞানকে আরো বৃদ্ধি করে থাকেন। ব্যাংকিং বিষয়ক বিভিন্ন জ্ঞান ও বিভিন্ন সমস্যার সমাধান যেন ব্যাংকারগণ নিজেদের ও ব্যাংক গ্রাহকদের মাঝে একটি প্লাটফর্মের মাধ্যমে শেয়ার করতে পারেন এই চিন্তা ও ভাবনা থেকেই Banker-ব্যাংকার গ্রুপ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

দেশের প্রতিটি সেক্টরে সবার মাঝে ইউনিটি রয়েছে। কিন্তু ব্যাংকারদের মাঝে এই ইউনিটি নেই। তাদের পক্ষে কথা বলার কেউ নেই। ব্যাংকাররা শুধু নিজের প্রয়োজনে নয় বরং দেশের ও দশের প্রয়োজনে কাজ করবে এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে গ্রুপের যাত্রা। আমরা (Banker-ব্যাংকার) ব্যাংকার ও মানবতার জন্যে কাজ করতে চাই। Banker-ব্যাংকার গ্রুপটি A Platform for Bankers এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ব্যাংকারদের এবং দেশের অবহেলিত, অসহায়, আর্ত-মানবতার কল্যাণে এগিয়ে আসার প্রত্যয় নিয়ে ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর অফিসার জনাব মোহাম্মদ শামসুদ্দীন আকন্দের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে গ্রুপের সদস্য সংখ্যা প্রায় ৫০,০০০ জন।

ইতিমধ্যে Banker-ব্যাংকার গ্রুপের সদস্যদের অংশগ্রহনের মাধ্যমে এডমিন ও মডারেটর প্যানেল আয়োজিত প্রথম মাসব্যাপী চলা (০১ নভেম্বর, ২০২০ থেকে ৩০ নভেম্বর, ২০২০) পরিচয় পর্বের বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান এবং এডমিন ও মডারেটর প্যানেলের গেট টুগেদার ১৮ ডিসেম্বর, ২০২০ চায়না সিজলিং রেস্তোরা (ভুতের আড্ডা), খিলগাঁও, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়াও Banker-ব্যাংকার গ্রুপের পক্ষ থেকে গ্রুপের সদস্যদের অংশগ্রহনের মাধ্যমে কর্পোরেট সোশ্যাল রেসপনসিবিলিটি (CSR) এর অংশ হিসেবে অসহায় শীতার্ত মানুষের পাশে দাড়িয়েছি। ‘গত (০২ জানুয়ারি, ২০২১) শীতে আমরা (এডমিন প্যানেল) কম্বল বিতরণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলাম। এটা আমাদের প্রথম উদ্যোগ ছিল। আগামীতে শুধু কম্বলই নয়, আমরা আরো সামাজিক অন্যান্য কর্মসূচি হাতে নেব ইনশা-আল্লাহ। সামনের সময়গুলোতে আমরা দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলের দরিদ্র ও অসহায়দের মাঝে এসব কর্মসূচি পালন করবো।’